ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২৩
আপডেট : ২৩ মে, ২০২৩ ১৬:২৩

জুনে রাশিয়া সেনাবাহিনীকে বাখমুত বুঝিয়ে দেবে ওয়াগনার

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক
জুনে রাশিয়া সেনাবাহিনীকে বাখমুত বুঝিয়ে দেবে ওয়াগনার


আগামী ১ জুনের মধ্যে ইউক্রেনের বাখমুত শহর রুশ সেনাদের কাছে হস্তান্তর করবে বলে প্রতিজ্ঞা করেছে রাশিয়ার ভাড়াটে ওয়াগনার বাহিনীর প্রধান। সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি জানিয়েছেন, আগামী মাসের শুরুতে বাখমুত থেকে ফিরে যাবে তার সেনা। আর শহরের সব ক্ষমতা রুশ সেনার হাতে হস্তান্তর করা হবে।

ওয়াগনারের প্রতিষ্ঠাতা ইয়েভজেনি প্রিগোজিন শনিবারই দাবি করেছেন তারা বাখমুত পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। সে সময় ওয়াগনার গোষ্ঠী ও রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীকে অভিনন্দন জানান রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। কিন্তু কিয়েভ এখনও দাবি করছে তারা শহরের কিছু অংশের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে।

ইউক্রেন বলছে, দেশটির সেনারা এখনও বাখমুতের বিভিন্ন অঞ্চল পুনরায় নিজেদের দখলে নেয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। রয়টার্সের খবরে সোমবার বলা হয় টেলিগ্রামে এক অডিও বার্তায় ইয়েভজেনি জানিয়েছেন, তাদের সৈন্যরা ২৫ মে থেকে ১ জুনের মধ্যেই আর্টেমভস্ক (বাখমুতের রুশ নাম) ছেড়ে যাবে।
ইউক্রেনের উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী হান্না মালিয়ার বলেছেন, তার দেশের সেনারা পার্শ্ববর্তী উপশহরের দিকে অগ্রসর হচ্ছেন। তারা বাখমুত শহরটিকে আধা-বেষ্টিত করে ফেলেছেন।

বাখমুতে একসময় প্রায় ৭০ হাজার মানুষের বসবাস ছিল। ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে পূর্ণমাত্রায় হামলা শুরু করে রাশিয়া। এই হামলা শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত ইউক্রেনে সংগঠিত সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী লড়াইয়ের সাক্ষী বাখমুত।

গত আট মাস ধরে বাখমুতের দখল নিয়ে লড়াই চলছে ইউক্রেন এবং রাশিয়ার। রাশিয়ার সেনাবাহিনীর বিপুল ক্ষতি হয়েছে বাখমুতে। ইউক্রেন এই দাবি আগেই করেছিল। পরে ওয়াগনার প্রধান তা স্বীকার করেন।

অন্যদিকে সম্প্রতি ওয়াশিংটন একটি সমীক্ষা করেছে। মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টের দাবি, প্রায় এক লাখ রাশিয়ার সেনা কম বেশি জখম হয়েছে বাখমুতের লড়াইয়ে। নিহত হয়েছেন অন্তত ২০ হাজার। ইউক্রেনও কমবেশি ২০ হাজার সেনা হারিয়েছে বলে ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে।

উপরে