ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪
আপডেট : ১৫ মে, ২০২৩ ১৭:২৬

ইমরান খানের জামিনের প্রতিবাদে ক্ষমতাসীন দলের বিক্ষোভ

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক
ইমরান খানের জামিনের প্রতিবাদে ক্ষমতাসীন দলের বিক্ষোভ


পাকিস্তানের বিচার বিভাগ সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খানের পক্ষ নিয়েছে, এমন অভিযোগে সুপ্রিম কোর্টের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেছে দেশটির ক্ষমতাসীন জোট পাকিস্তান ডেমোক্র্যাটিক মুভমেন্ট (পিডিএম)। সোমবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম দ্য ডন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তান ডেমোক্র্যাটিক মুভমেন্ট (পিডিএম) বিক্ষোভকারীরা পিটিআই প্রধান ইমরান খানের পক্ষ নেয়ার অভিযোগে বিচার বিভাগের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের বাইরে জড়ো হয়েছে। টিভিতে সম্প্রচারিত ফুটেজে দেখা গেছে, জমিয়ত উলেমা-ই-ইসলাম-ফজল (জেইউআই-এফ) কর্মীরা ইসলামাবাদের রেড জোনের গেট ভেঙ্গে এগিয়ে গেলেও পুলিশ দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে তা দেখছে। ডন নিউজটিভি জানিয়েছে, গেট খোলার সাথে সাথেই হাজার হাজার পিডিএম কর্মী ভেতরে ছুটে প্রবেশ করেন।

এর আগে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ এবং অর্থমন্ত্রী ইসহাক দার রোববার মাওলানা ফজলুর রহমানকে অন্য জায়গায় বিক্ষোভ করার অনুরোধ করেন। কিন্তু ফজলুর রহমান রাজি হননি। তিনি সুপ্রিম কোর্টের সামনেই বিক্ষোভ করতে বদ্ধপরিকর। তার দাবি, ইমরান খানকে যেভাবে আদালত জামিন দিয়েছে এবং তার গ্রেপ্তারিকে বেআইনি ঘোষণা করেছে, তার বিরুদ্ধেই সমর্থকদের নিয়ে বিক্ষোভ করবেন তিনি। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের সামনের এলাকা হাই সিকিউরিটি জোন। ফলে সেখানে বিক্ষোভের অনুমতি দেয়া হয় না।

সেজন্যই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রী রোববার এটাই বোঝাতে গিয়েছিলেন, বিক্ষোভ করার জায়গা পরিবর্তন করুক পিডিএম প্রধান। জিও নিউজ জানিয়েছে, জেইউআই-এফ এবং সরকারের মধ্যে আলোচনা ব্যর্থ হয়েছে।

এদিকে পাকিস্তানের প্রখ্যাত আইনজীবী ব্যারিস্টার আসাদ রহিম বলেছেন, শীর্ষ আদালতের বিরুদ্ধে বর্তমান জোট সরকারের বিক্ষোভ করার একমাত্র কারণ হচ্ছে ‘সুপ্রিম কোর্টকে ভয় দেখানো’। তিনি বলছেন, কারণ পাকিস্তানে ‘গণতন্ত্র ধ্বংসের’ পথে শেহবাজ সরকারের কাছে সুপ্রিম কোর্টই চূড়ান্ত বাধা।

অন্যদিকে ইমরান খানকে আজ সোমবার আবার আদালতে পেশ করা হবে। ইসলামাবাদ হাইকোর্ট জানিয়েছিল, সোমবার পর্যন্ত ইমরানকে কোনও মামলায় গ্রেপ্তার করা যাবে না।

অবশ্য সুপ্রিম কোর্টের সামনে বিক্ষোভের সমালোচনা করেছেন ইমরান খান। তিনি বলেছেন, এটা নাটক ছাড়া আর কিছু নয়। ইমরান আরও বলেছেন, সোমবার ইন্টারনেট বন্ধ করে দেবে সরকার। যাতে সামাজিক মাধ্যম মানুষ ব্যবহার না করতে পারে।

উপরে