ঢাকা, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২২
আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৭:৫৮

ইরানে হিজাব বিরোধী বিক্ষোভে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ইরানে হিজাব বিরোধী বিক্ষোভে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫০


বাতাসে উড়ছে হিজাব, প্রকাশ্যে চুল কাটছেন ইরানের নারীরা। তাদের সাহায্য়ার্থে এগিয়ে আসছেন পুরুষরাও। সম্প্রতি নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে মাহসা আমিনির মৃত্য়ুর পর এইভাবে প্রতিবাদের ভাষা ব্যক্ত করছেন হাজারো ইরানীরা।
প্রথমে বিক্ষোভ ইরানের কুর্দি অধ্যুষিত উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে শুরু হলেও ক্রমে তা দেশটির ৫০টি শহর ও নগরে ছড়িয়ে পড়ে। ২০১৯ এ পেট্রলের দাম নিয়ে হওয়া বিক্ষোভের পর দেশটির দেখা সবচেয়ে বড় প্রতিবাদ এটি।

এদিকে বিক্ষোভ প্রতিবাদ বন্ধ করতে পুলিশ, নিরাপত্তা বাহিনী নির্বিচারে গুলি চালানোর অভিযোগ উঠেছে। অসলো ভিত্তিক ইরান মানবাধিকারের এনজিও জানিয়েছে, শুক্রবার রাতে ইরানের উত্তর গিলান প্রদেশের রেজভাশাহর শহরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ৬ জন মারা গিয়েছেন। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা ৫০ এ দাড়িয়েছে।এই পরিস্থিতিতে সরকার বিরোধী প্রতিবাদীদের বিরু্দ্ধে অপ্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা থেকে বিরত থাকার জন্য নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন জাতিসংঘের সেক্রেটারি জেনারেল অ্যান্টোনিও গুতেরেস। গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক জানিয়েছেন, তিনি এই পরিস্থিতি উত্তাল হওয়া থেকে সবাইকে সংযম থাকার আবেদন জানিয়েছেন।

নিউ ইয়র্কের সাংবাদিকদের দুজারিক বলেছেন, ইরানে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে অত্যধিক শক্তি প্রয়োগের ফলে একাধিক জনের মৃত্যু ও আহত হওয়ার খবরে আমরা উদ্বিগ্ন। তিনি আরও বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতা, শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অধিকারকে সম্মান করার জন্য কর্তৃপক্ষদের আহ্বান করছি।এদিকে বিক্ষোভ সামাল দিতে ইরানের একাধিক জায়গায় মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা, হোয়াটসঅ্যাপ,ইনস্টাগ্রাম বন্ধ করে দিয়েছে সরকার।

এই পরিস্থিতিতে ইরানের বিক্ষোভকারীদের সমর্থনে সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সি (এনএসএ) জানিয়েছে, ইরানে ইন্টারনেট পরিষেবার উপর নিষেধাজ্ঞা শিথিল করার জন্য একটি লাইসেন্স জারি করা হয়েছে।
মার্কিন ট্রেজারি ডিপার্টমেন্ট শুক্রবার বলেছে, ইরানি কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভকে ব্যাহত করতে এবং বিশ্বকে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের উপর তার সহিংস দমন-পীড়ন দেখা থেকে বিরত রাখতে দেশে ইন্টারনেট অ্যাক্সেস বন্ধ করে দেয়ার প্রতিক্রিয়ায় এই সিদ্ধান্ত এসেছে।

এদিকে প্রতিবাদীদের সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন টেসলা সিইও ইলন মাস্ক। শুক্রবার তিনি জানিয়েছেন ইরানে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেয়ার মধ্যেই স্যাটেলাইট ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করছেন তিনি।

সূত্র: এএফপি, আলজাজিরা

উপরে