ঢাকা, সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:০৭

নাম বলছেন পাপিয়া, ফেঁসে যাচ্ছেন ভিআইপিরা

অনলাইন ডেস্ক
নাম বলছেন পাপিয়া, ফেঁসে যাচ্ছেন ভিআইপিরা


শামীমা নূর পাপিয়া তার অবৈধ সম্পদ ও অপকর্মের মধ্যে মাদক, অস্ত্র, প্রতারণা আর যৌন ব্যবসার সাথে জড়িতদের নাম বলতে শুরু করেছেন। আদালতের নির্দেশনায় রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি একাধিক রাজনীতিক ও ভিআইপির নাম বলেছেন। এছাড়া তার সঙ্গে থাকা সুন্দরী তরুণী ও খদ্দেরদের নামও প্রকাশ করছেন। এতে অনেক ভিআইপি এখন উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেন। পাপিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের সঙ্গে সম্পর্কিত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) এ খবর প্রকাশ করেছে দেশের একটি জাতীয় দৈনিকের অনলাইন পোর্টাল।
খবরে বলা হয়েছে, পাপিয়া শুধু ঢাকা কেন্দ্রীক নয়, নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছেন বিভিন্ন কয়েক বিভাগ ও জেলা শহরে। তার প্রতিষ্ঠিত অনলাইনভিত্তিক দেহব্যবসার প্রতিষ্ঠানটি এখনো সক্রিয়। অনলাইনভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ঢাকার বাইরে দেহব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করতেন পাপিয়া।
এদিকে পাপিয়াকে সুবিধা দেয়া গড ফাদারদের অনুসন্ধানে নেমেছে দুদক। দুদক বলছে, পাপিয়া থেকে সুবিধা নেয়া রাজনৈতিক দলের নেতাদের তালিকা সংগ্রহের চেষ্টা চলছে। তালিকা পাওয়ার পর তাদেরও নজরদারির আওতায় আনা হবে।
জিজ্ঞাসাবাদ সংশ্লিষ্ট সূত্রটি জানিয়েছে, রিমান্ডে পাপিয়া অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তির নাম ফাঁস করে দিয়েছেন। এতে অনেক ভিআইপির ঘুম হারাম হয়ে গেছে। পাপিয়ার কাছ থেকে কোন কোন নেতা অনৈতিক সুবিধা নিয়েছেন, তাদের নিয়ে দলেও কানাঘুষা চলছে।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, আইনগত বাধা এড়াতে মামলাটির তদন্ত হাতে নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছে র‌্যাব। জিজ্ঞাসাবাদ করে পাপিয়ার কাছ থেকে আমরা বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছি। আরও অনেক তথ্য পাওয়া যাবে বলে মনে করছি।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে তদন্তের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আরেক কর্মকর্তা বলেন, পাপিয়ার উত্থানের পেছনে কাদের ভূমিকা ছিল, কারা পাপিয়া গংদের কাছ থেকে নিয়মিত সুবিধা নিতেন, তাদের প্রত্যেকের বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। আমরা প্রতিটি তথ্য গুরুত্বের সঙ্গে নিচ্ছি এবং ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে তাৎক্ষণিক রিপোর্ট করছি। অপরাধী যেই হোক, তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে ওই কর্মকর্তা জানান।

উপরে