ঢাকা, বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০
আপডেট : ২১ নভেম্বর, ২০২০ ১৬:৪৪

পশ্চিমতীরে পম্পেও'র সফর নিয়ে ফিলিস্তিনে ব্যাপক উত্তেজনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
পশ্চিমতীরে পম্পেও'র সফর নিয়ে ফিলিস্তিনে ব্যাপক উত্তেজনা

 

ফিলিস্তিনিদের দীর্ঘদিনের আপত্তি সত্ত্বেও জেরুজালেমকে শুধু ইসরায়েলের রাজধানী বলে ‘স্বীকৃতি’ দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
এর তিন বছরের মাথায় বৃহস্পতিবার অবৈধ রাষ্ট্র ইসরায়েলেরই অধিকৃত পশ্চিমতীরে ইহুদি বসতিতে গিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে ফিলিস্তিনিদের ক্ষোভে নতুন করে ঘি ঢাললেন তার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। 
এই প্রথম কোনও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিতর্কিত পশ্চিমতীরে পা রাখলেন। সেখানে গিয়ে মাইক পম্পেও যা বললেন, তাতে আরও উত্তেজনা ছড়িয়েছে ফিলিস্তিনে।
সেখানে গিয়ে পম্পেও বললেন, পশ্চিমতীরে তৈরি হওয়া যে কোনও পণ্য ‘মেড ইন ইসরায়েল’ হিসেবেই বিদেশে রফতানি হওয়া উচিত। কারণ এই ভূখণ্ড ইসরায়েলেরই অবিচ্ছেদ্য অংশ।
পম্পেও আরও বলেন, পশ্চিমতীরে ইসরায়েলের বসতি সম্প্রসারণকেও আর আন্তর্জাতিক আইনলঙ্ঘন বলে মনে করবে না ওয়াশিংটন।

গত বছর নভেম্বরে ঠিক এমনটাই বলেছিলেন ট্রাম্প। তার পাঠানো পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখে ফের সেই সুর শুনে তীব্র প্রতিবাদ শুরু হয়েছে ফিলিস্তিন ও আরব বিশ্বে।
এরপর সিরিয়ার কাছ থেকে দখল করা গোলান মালভূমিতেও আরেকটি অবৈধ ইহুদি বসতিতে সফর করেন পম্পেও। সিরিয়ার কাছ থেকে ১৯৬৭ সালে এই অংশটি জবরদখল করে ইসরাইল। গোলনকেও ইসরায়েলের অংশ মনে করেন বলে জানান পম্পেও।

উপরে